শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
ঈদ এলেও তাদের স্বপ্ন বাড়ি যায় না ঈশ্বরদীতে ঈদ বাজারে শেষ মুহূর্তে বিক্রি বেড়েছে প্রসাধনী সামগ্রীর ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পিতা : চির বিদায় ঈশ্বরদীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়নে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময় সভা ঈশ্বরদীতে মুড়ির ফ্যাক্টরি সহ তিন প্রতিষ্ঠানে অভিযান,জরিমানা ৮০ হাজার টাকা ঈশ্বরদীতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস পালিত ঈশ্বরদীতে ধানক্ষেত থেকে মেছো বাঘ উদ্ধার রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অগ্রগতি পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানী বিষয়ক উপদেষ্টা বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখ উদযাপন উপলক্ষে ঈশ্বরদীতে প্রস্তুতি সভা ঈশ্বরদীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন-সমন্বয় কমিটির সভা

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঈশ্বরদী উপজেলা প্রশাসনের অভিযান, ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

বার্তাকক্ষ
আজকের তারিখঃ শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন
উপজেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিং জরিমানা আদায়।

পাবনার ঈশ্বরদীতে রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রাখতে বাজার মনিটরিং করেছে উপজেলা প্রশাসন।  আজ দুপুরে দাশুড়িয়া বাজারে বাজার মনিটরিং পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  টি. এম. রাহসিন কবির।
রমজানে প্রয়োজনীয় খাদ্য পণ্য খেজুর, তেল, ডাল, মাছ মাংস ও সবজিসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক ও সহনীয় পর্যায়ে রাখার জন্য এবং দ্রব্যমূল্য নিয়ে কারচুপি না করার জন্য সকল ব্যবসায়ীদের প্রাথমিকভাবে সতর্ক করা হয়।
পরে দাশুড়িয়া বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ধারায় অনন্ত ষ্টোরকে ৫০০ টাকা, মেসার্স সন্তোষ স্টোরকে ১০০০ টাকা, কুদ্দুস স্টোরকে ১ হাজার টাকা, কুন্ডু স্টোরকে ৫০০ টাকা, রাজিব ফল ভান্ডারকে ৫০০ টাকা, আশরাফুল ফল ভান্ডারকে ২০০০ হাজার টাকা, জাফর ফল ভান্ডারকে ২০০০ টাকা, এম জে স্টোরকে ৩০০০ টাকা এবং মানুষের খাদ্যের সাথে গো-খাদ্য রাখার অভিযোগে ভাই ভাই স্টোরের মালিককে ২০০০ টাকা সহ মোট ১২ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
এ সময় সতর্ক করা হয় বেশ কয়েকটি কাপড় ও কাঁচামালের দোকান মালিককে। একইসাথে তরমুজের দোকানে গিয়ে মূল্য তালিকা পর্যালোচনা করা হয়। পরবর্তীতে অভিযোগ পেলে জরিমানা করা হবে বলে জানান তিনি।
উপজেলা সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট টি. এম. রাহসিন কবির জানান, পবিত্র রমজান মাসে বাজার মনিটরিং করা হলো ব্যবসায়ীদের সর্তক বার্তা দেয়ার জন্য। কোনো পন্যের কৃত্তিম সংকট কাজে লাগিয়ে যদি দাম বেশি নেয় তাহলে আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। রমজানে কোনো পন্যে যেন অস্থিরতা না তৈরি হয় সেজন্য এই বাজার মনিটরিং। বাজারের উচ্চমূল্যে ক্রেতাদের যেন জিম্মি না করতে পারে সেজন্য সচেতন করা হয়েছে ব্যবসায়ীদের। পুরো রমজান মাস জুড়ে জনস্বার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান উপজেলা প্রশাসনের ওই কর্মকর্তা।
এসময় সহকারী কমিশনার কার্যালয়ের পেসকার জয়ন্তবসু ও ঈশ্বরদী থানা পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় সহযোগিতা করেন।

 


এই বিভাগের আরো খবর........
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error: কপি করার অনুমতি নেই !
error: কপি করার অনুমতি নেই !