শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
ঈদ এলেও তাদের স্বপ্ন বাড়ি যায় না ঈশ্বরদীতে ঈদ বাজারে শেষ মুহূর্তে বিক্রি বেড়েছে প্রসাধনী সামগ্রীর ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পিতা : চির বিদায় ঈশ্বরদীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়নে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময় সভা ঈশ্বরদীতে মুড়ির ফ্যাক্টরি সহ তিন প্রতিষ্ঠানে অভিযান,জরিমানা ৮০ হাজার টাকা ঈশ্বরদীতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস পালিত ঈশ্বরদীতে ধানক্ষেত থেকে মেছো বাঘ উদ্ধার রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অগ্রগতি পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানী বিষয়ক উপদেষ্টা বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখ উদযাপন উপলক্ষে ঈশ্বরদীতে প্রস্তুতি সভা ঈশ্বরদীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন-সমন্বয় কমিটির সভা

মিশরে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চতুর্থ ইউনিটের নির্মান কাজ শুরু

বার্তা কক্ষঃ
আজকের তারিখঃ শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:১৮ অপরাহ্ন

‘ফার্স্ট কংক্রীট অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সম্প্রতি মিশরের এল-দাবা পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের চতুর্থ ইউনিটের মূল পর্বের নির্মান কাজ শুরু হয়েছে।

এল-দাবা মিশরের একমাত্র পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প এবং আফ্রিকা মহাদেশের সর্ববৃহৎ। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পরমাণু শক্তি কর্পোরেশন রসাটমের প্রকৌশল শাখা প্রকল্পটির জেনারেল কন্ট্রাকটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে।

রসাটম প্রেরীত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ফার্স্ট কংক্রীট অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন। এছাড়াও মিশরের প্রধানমন্ত্রী মৌস্তফা মাদবুলি, রসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচেভ, মিশরের বিদ্যুৎ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানী বিষয়ক মন্ত্রী ডঃ মোহামেদ সাকের এবং মিশরের পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ডঃ আমজেদ এল-ওয়াকিল অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আলেক্সি লিখাচেভ তাঁর বক্তব্যে জানান, আসওয়ান বাঁধ নির্মানের পর মিশরীয় এই পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্পটি দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতার ক্ষেত্রে সর্ববৃহৎ প্রকল্প।

বর্তমানে এল-দাবা এনপিপি’র চারটি ইউনিট নির্মানাধীন। মিশরীয় এই সাইটটি সারা বিশ্বে আমাদের দ্বারা নির্মিত দুটি বৃহত্তম পারমাণবিক প্রকল্পের একটি মিশরের প্রথম পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্প এল-দাবা এনপিপিতে চারটি ইউনিট রয়েছে। প্রতিটির উৎপাদন ক্ষমতা ১,২০০ মেগাওয়াট।

চারটি ইউনিটেই স্থাপিত হবে ৩+ প্রজন্মের ভিভিইআর-১২০০ রিয়্যাক্টর। রাশিয়া প্রকল্পটি নির্মান করা ছাড়াও এর পুরো আয়ুষ্কাল জুড়ে পারমাণবিক জ্বালানী সরবরাহ করবে। অধিকন্তু, প্রকল্পটি চালুর পর প্রথম দশ বছর প্রয়োজনীয় পরিচালন ও সার্ভিসিং সেবা প্রদান করবে। রাশিয়ার সহযোগিতায় মিশরীয় বিশেষজ্ঞরা প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ সুবিধা পাবেন।


এই বিভাগের আরো খবর........
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error: কপি করার অনুমতি নেই !
error: কপি করার অনুমতি নেই !