শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
ঈদ এলেও তাদের স্বপ্ন বাড়ি যায় না ঈশ্বরদীতে ঈদ বাজারে শেষ মুহূর্তে বিক্রি বেড়েছে প্রসাধনী সামগ্রীর ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পিতা : চির বিদায় ঈশ্বরদীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়নে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময় সভা ঈশ্বরদীতে মুড়ির ফ্যাক্টরি সহ তিন প্রতিষ্ঠানে অভিযান,জরিমানা ৮০ হাজার টাকা ঈশ্বরদীতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস পালিত ঈশ্বরদীতে ধানক্ষেত থেকে মেছো বাঘ উদ্ধার রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অগ্রগতি পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানী বিষয়ক উপদেষ্টা বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখ উদযাপন উপলক্ষে ঈশ্বরদীতে প্রস্তুতি সভা ঈশ্বরদীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন-সমন্বয় কমিটির সভা

পরিবেশের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ ভাসমান স্থাপনা নিষ্ক্রিয় করলো রাশিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক
আজকের তারিখঃ শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৫৭ অপরাহ্ন

রাশিয়ার উত্তর-পশ্চিমে মুরমান্সক অঞ্চলে পরিবেশের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ একটি ফোটিং টেকনিক্যাল বেইজ (FTB) সফলভাবে ধ্বংস করতে সমর্থ হয়েছে রাশিয়া। 

রসাটমের গণমাধ্যম প্রেরীতে প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এর জন্য সময় লেগেছে দশ বছরেরও বেশি। ‘লেপসে’ নামক এই ভাসমান এই স্থাপনাটি রাশিয়ার প্রথম দিকের পরমাণু শক্তি চালিত আইস ব্রেকারগুলোর পরিচালনায় ব্যবহার করা হতো এবং একই সঙ্গে এটিতে ব্যবহৃত পরমাণু জ্বালানী সংরক্ষণ করা হতো। বহু বছর ধরেই স্থাপনাটি পরিবেশের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়ে আসছিল। 

এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে রসাটমের উপ-মহাপরিচালক আন্দ্রেই নিকিপেলভ জানান, “বিশ বছরের অধিক সময় ধরে রসাটম পর্যায়ক্রমে আর্কটিক উপকুল এবং দূরপ্রাচ্য অঞ্চলে তেজস্ক্রিয়তা নির্গমনকারী বিভিন্ন বস্তু অপসারণের কাজ করে যাচ্ছে, যার মধ্যে রয়েছে বাতিল ও ডিকমিশনকৃত পরমাণু আউসব্রেকারসহ বিভিন্ন সংশ্লিষ্ট জাহাজ সমূহ। লেপসে ভাসমান টেকনিক্যাল বেইজটি নিরাপদে ভেঙে ফেলার মধ্য দিয়ে আজকে রসাটম সফলভাবে তাদের অন্যতম মাইলফলক পরিবেশ প্রকল্প সম্পন্ন করলো”।

 লেপসে’তে মূল তেজস্ক্রিয় যে বস্তু ছিল সেটি হলো স্পেন্ট নিউকিয়ার ফুয়েলের (SNF) এর ৬৩৯টি বান্ডেল, যার মধ্যে কিছু সংখ্যক ক্ষতিগ্রস্থ। এসকল ফুয়েল বান্ডেল অপসারণের জন্য প্রয়োজন ছিল বিশেষ প্রকৌশল সমাধান। স্পেন্ট নিউক্লিয়ার ফুয়েল বান্ডেলগুলো বের করে আনার জন্য লেপসে’কে বিশেষভাবে ডিজাইনকৃত ও নির্মিত তীরবর্তী একটি সাইটে স্থাপন করা হয়। 

কাজটি সম্পাদনের জন্য বিশেষ ধরণের যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম প্রস্তুতও করা হয়। এই কাজে ব্যবহৃত হয় রিমোট কন্ট্রোল একটি রোবট ইউনিট। গুরুত্বপূর্ণ এই প্রকল্পে পরমাণু শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন রুশ ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে। উল্লেখ্য, মুরমান্সক অঞ্চলে স্পেন্ট নিউকিয়ার ফুয়েলের অপসারণ কাজ পরিকল্পনা মাফিক এগিয়ে চলছে। 

২০০২ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে এই অঞ্চলে জমাকৃত স্পেন্ট নিউকিয়ার ফুয়েলের পরিমান অর্ধেকে নামিয়ে আনা হয়েছে। ২০২৫ সালের মধ্যে এই কাজ সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ‘আন্দ্রেইভ বে’ স্থাপনায় জমাকৃত স্পেন্ট নিউকিয়ার ফুয়েলের অর্ধেকেরও বেশি ইতোমধ্যে অপসারণ করা হয়েছে এবং ২০২৮ সাল নাগাদ কাজটি সম্পন্ন হবে।


এই বিভাগের আরো খবর........
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error: কপি করার অনুমতি নেই !
error: কপি করার অনুমতি নেই !