বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০১:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
করোনায় আর স্কুল বন্ধের কথা ভাবা হচ্ছে না: শিক্ষামন্ত্রী ঈশ্বরদীতে করোনা শনাক্ত গত ২৪ ঘন্টায় ৪ জন এমপিওভুক্ত হলো ২ হাজার ৭১৬ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া মোটরসাইকেলের রেজিস্ট্রেশন নয় ঈশ্বরদীতে নারী আনসার সদস্যকে ঘুসি মারলেন ইউপি সদস্য আখতারুল ঈশ্বরদীতে বেপরোয়া গতির মোটরসাইকেল চাপায় পথচারী নিহত ঈশ্বরদীতে হাট নিয়ে দ্বন্দ্বে শঙ্কিত কৃষক ও ব্যবসায়ীরা শিক্ষক উৎপল হত্যা : জিতু ৫ দিনের রিমান্ডে স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে দাদাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত পাবনায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠদের মাঝে সনদপত্র ও সম্মননা ক্রেস্ট প্রদান

পাবনার বেড়ায় শিক্ষক কর্তৃক স্কুলছাত্রী আপহরণের ৫দিন পর উদ্ধার, গ্রেফতার-১

বার্তাকক্ষ
প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০১:১২ পূর্বাহ্ন
অপহরণকারী সহকারী শিক্ষক হাসমত হোসেন।

পাবনার বেড়া উপজেলায় ভারেঙ্গা একাডেমির সহকারী শিক্ষক কর্তৃক স্কুলছাত্রী অপহরণের ৫দিন পর নরসিংদী জেলার পলাশ থানাধীন গুচ্ছ গ্রাম থেকে

উদ্ধার করেছে বেড়া মডেল থানা পুলিশ। এ সময় অপহরণকারী শিক্ষক হাসমত হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পাবনা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম এর নির্দেশনায় নিখোঁজ স্কুলছাত্রীকে শনিবার ১৪ মে বেড়া মডেল থানা পুলিশের এস আই মোঃ আরিফুল ইসলাম অভিযান পরিচালনা করে নরসিংদী জেলার পলাশ থানাধীন গুচ্ছ গ্রাম থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন।

বুধবার ৯ মে সন্ধ্যায় স্কুলছাত্রী অপহরণের শিকার হলে ছাত্রীর বাবা রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে বেড়া মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন যার ডায়েরী নং ৪২৭।

মামলা ও ঘটনা সুত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত শিক্ষক হাসমত হোসেন ঐ শিক্ষার্থীর নিজ বাড়ীতে প্রাইভেট পড়াতো। প্রাইভেট পড়ানোর সুযোগে ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। বিভিন্ন স্থানে ঘুরে ফিরে নরসিংদী জেলার পলাশ থানাধীন গুচ্ছ গ্রামে আছে বলে পুলিশ জানতে পারে। অবশেষে শনিবার অপহরণের  ৫ দিনের মাথায় নরসিংদী জেলার পলাশ থানাধীন গুচ্ছ গ্রাম থেকে পুলিশের জালে ধরা পড়ে ভিকটিমসহ অপহরণকারী শিক্ষক হাসমত হোসেন।

ভিকটিমকে উদ্ধারের বিষয়ে বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার বলেন, পুলিশ সুপারের নির্দেশে বেড়া থানা পুলিশ ঢাকা ও নরসিংদী জেলায় অভিযান পরিচালনা করে স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে। উদ্ধার হওয়া স্কুল ছাত্রী ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

এ দিকে পাবনা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম মোসলেম উদ্দীন জানান এ ব্যাপারে ইতোমধ্যে বেড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জনাব মোঃ খবির সাহেবকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। প্রাথমিকভাবে জানা যায় যে,উক্ত শিক্ষক খন্ডকালীন নিয়োজিত। এরপরও তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া অব্যাহত।

শেয়ার করুন...


এই বিভাগের আরো খবর........
.
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error: কপি করার অনুমতি নেই !
error: কপি করার অনুমতি নেই !